স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া - Low Investment Online Business Ideas 2024

স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া সম্পর্কে আজকে আমাদের এই আর্টিকেল। আপনার যদি নামমাত্র পুঁজি থাকে তাহলে আপনি এই বিজনেস গুলো চাইলেই শুরু করতে পারেন। Low Investment Online Business Ideas 2024 বা স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া এর মধ্যে যেকোন একটি নিয়ে ব্যবসা শুরু করে দিন।
স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া - Low Investment Online Business Ideas 2024। জানবো আমরা। janbo amra
স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া - Low Investment Online Business Ideas 2024

সূচিপত্রঃ স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া - Online Business Idea 2024

ভূমিকাঃ

ঘরে বসে স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস করে টাকা রোজগারের পথ সহজ করেছে ইন্টারনেট। স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস শুরু করা গেলেও এখানে মূল লগ্নি হলো আপনার সময় ও জ্ঞান।

নিজের দক্ষতাকে বাজারের জন্য প্রস্তুত করে বিক্রি করতে হবে, এটাই অনলাইন বিজনেস বা Low Investment Online Business এর মূল চ্যালেঞ্জ। আসুন জেনে নিন স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া যা আপনি শুরু করতে পারবেন নামমাত্র বিনিয়োগে।

অর্থকরী ওয়েবিনার

স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া গুলোর মধ্যে ওয়েবিনার অর্থাৎ ওয়েব সেমিনার হোস্ট করতে হলে আপনার যেকোন একটি বিষয়ে গভীর জ্ঞান থাকতে হবে। এমন বিষয় যা মানুষকে আকৃষ্ট করে, যা মানুষ পয়সার বিনিময় দেখতে চাইবে।

সাধারণ ভিডিও ব্রডকাস্টের থেকে ওয়েবিনারের পার্থক্য হলো এখানে দর্শক সরাসরি চ্যাটের মাধ্যমে কথা বলতে পারেন বক্তার সঙ্গে, রাখতে পারেন তাদের প্রশ্ন, বিনিময় করতে পারেন তাদের মতামত।

কয়েকটি ফ্রি ওয়েবিনার করে দর্শকের প্রতিক্রিয়া দেখে তার ভিত্তিতে আপনার পেইড ওয়েবিনার ব্যবসার পরিকল্পনা করতে পারেন। একবার পরিচিতি পেয়ে গেলে এই অনলাইন ব্যবসায় ভালো লাভ করা সম্ভব।

ফ্লিপিং ডোমেইন

স্বল্প বিনিয়োগে আরো একটি লাভজনক অনলাইন বিজনেস আইডিয়া হলো ফ্লিপিং ডোমেইন, অর্থাৎ একটি ডোমেইন নেম কিনে সেটিকে বেশি দামে বিক্রি করা। আপনাকে প্রথমে একটি ডোমেইন নেম কিনে নিতে হবে। অনেক ক্ষেত্রেই এক্সপায়ার হয়ে যাওয়া ডোমেইন নেম কেনাই বেশি লাভজনক।

তবে এই অনলাইন বিজনেস শুরু করতে হলে প্রথমেই ডোমেইন নেম সম্পর্কে ভালোভাবে গবেষণা করে নিতে হবে, জানতে হবে কোন ধরনের ডোমেইন নেমের চাহিদা বেশি, কোন ডোমেইন নেম বেশি দামে বিক্রি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। অনেক সময় একটি ডোমেইন নেম কেনার পর দ্রুত সেটি আবার বিক্রি করে ফেলা যায় ।

তবে মনে রাখা দরকার তা সব সময়ে সত্যি নাও হতে পারে, কখনো একটি ডোমেইন নেম কিনে মাসের পর মাসও ফেলে রাখতে হতে পারে। গোড্যাডি ডট কম, নেমচিপ ডট কম, ফ্লিপা ডট কম ইত্যাদি বহু অনলাইন মার্কেটপ্লেসে রয়েছে যেখানে ডোমেইন কেনাবেচা করা সম্ভব।

সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার

Low Investment Online Business Ideas 2024 এর মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার একটি অন্যতম মাধ্যম। ফেসবুকের মাধ্যমে প্রচার চালিয়ে সাফল্য পেয়েছে ছোটবড় সব ধরনের ব্যবসা। তবে ফেসবুক ছাড়াও অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া যেমন শেয়ার চ্যাট বা tiktok এ প্রচারের একটা বড় সুযোগ রয়েছে।

এগুলো অপেক্ষাকৃত নতুন হওয়ায় এ বিষয়ে বিশেষজ্ঞের সংখ্যাও কম। শুধু টিকটকে স্বল্পদৈর্ঘের ভিডিও শেয়ার করে রীতিমতো তারকা হয়ে উঠেছেন অনেকেই, রোজগার করছেন মোটা টাকা। ভারতের অন্যতম টিকটক তারকা নাগমা মিরজাকরের ফলোয়ার সংখ্যা ৭৪ লক্ষ, এক্সপ্রেশন কুইন ম্রুনাল পাঞ্চালের ফ্যান ৪২ লক্ষ।

নাচ, গান বা এমনিই মজার কোন কার্যকলাপ শেয়ার করেই বিখ্যাত হচ্ছেন আজকের টিকটক তারকারা। স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া গুলোর মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে অল্প সময়েই লাখপতি হতে পারেন।

খেলনা এবং গেম

অনলাইনে খেলনা এবং গেমের ব্যবসা করতে চাইলে আপনি পাইকারি দরে প্রচুর খেলনা কিনে নিন। একসাথে অনেকগুলো খেলনা কিনে নিলে দামে সস্তা পাবেন।

এই খেলনাগুলো আপনার ই-কমার্স ওয়েবসাইটে অথবা আপনার ফেসবুক পেজ, ইন্সটাগ্রাম বা বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াতে প্রচার করুন। এভাবে আপনি স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইনে খেলনা এবং গেমের বিজনেসটি শুরু করতে পারেন।

ই-বুক লেখা

যে কোন বিষয়ে নিয়ে ই-বুক লিখতে পারেন যতক্ষণ সেটার বাজারে চাহিদা রয়েছে। যে বিষয় লিখছেন তা সম্পর্কে আপনার স্বচ্ছ ধারণা থাকা প্রয়োজন প্রয়োজন, প্রয়োজন আগ্রহও। আপনি যদি ধৈর্য্য সহকারে কাজটি করতে পারেন তাহলে স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া গুলোর মধ্যে এটি সেরা মাধ্যম হতে পারে।

বিষয়টি নিয়ে যথেষ্ট গবেষণা করে তবেই লিখুন। কারণ নতুন কিছু না থাকলে পাঠকের কাছে বই কখনই সমাদৃত হবে না। অ্যামাজনের কিন্ডল ডিরেক্ট পাবলিশিং ই-বুক পাবলিশ করার এক সহজ ও লাভজনক উপায়। নিয়মিত ই-বুক লিখে স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস করে ঘরে বসেই ভালো টাকা উপার্জন করতে পারেন।

অনলাইন কোর্স তৈরি

অনলাইনে বিভিন্ন কোর্স তৈরি করে তা বিক্রির মাধ্যমে ভালো ব্যবসা করতে পারেন। যে বিষয়ে আপনার যথেষ্ট জ্ঞান রয়েছে এবং যা শিক্ষার্থীদের কাজে লাগবে এমন কোর্সই বিক্রি হবে। ফলে বিষয় নির্বাচন এই ব্যবসার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ধাপ। কোর্সটি পরিকল্পনার সময়ে ভাবুন আপনি নিজে এই কোর্সটি পয়সা দিয়ে কিনতেন কি না, আপনি নিজে এই কোর্স থেকে উপকৃত হতেন কি না।

এই দুটি প্রশ্নের উত্তর হ্যাঁ হলে তবেই কোর্সটি নিয়ে এগোন। কোর্স তৈরির সময়েে যথেষ্ট পড়াশোনা করা প্রয়োজন। কোর্সটিতে নতুনত্ব আনতে নিজের সৃজনশক্তিকে কাজে লাগান। আর তাতেই আকৃষ্ট হবেন শিক্ষার্থী। কোর্সের বিষয় যাই হোক না কেন, তাকে সহজভাবে উপস্থাপন করুন।

নিজের ব্লগের মাধ্যমে অনলাইন কোর্স বিক্রি করা যেতে পারে অথবা প্রতিষ্ঠিত অনলাইন কোর্সের প্ল্যাটফর্ম আপগ্রেড, ইউডেমি-র মাধ্যমেও বিক্রি করা যেতে পারে। স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া গুলোর মধ্যে অনলাইন কোর্স তৈরি করে বিক্রি একটি অন্যতম ব্যবসা।

ঘরে বসে শিক্ষকতা

আরো একটি স্বল্প বিনিয়োগে লাভজনক অনলাইন বিজনেস আইডিয়া হলো ঘরে বসে শিক্ষকতা। ভাষা শিক্ষার ক্ষেত্রে অনলাইন শিক্ষকতার একটি বড় বাজার রয়েছে। এছাড়া অন্যান্য বিষয়েও শিক্ষকতা করা যেতে পারে। বিষয়ের উপর দখল থাকলেও শিক্ষকতার সাবলীলতা থাকলে ছাত্র-ছাত্রী ঠিকই জুটে যাবে।

ড্রপ শিপিং

এ ব্যবসায় আপনার নিজের কোন পণ্য থাকার দরকার নেই। আপনাকে শুধু একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে এবং এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অর্ডার নিয়ে অন্য কোম্পানির পণ্য আপনি বিক্রি করবেন। খুচরা ব্যবসার মতো প্রাথমিক বিনিয়োগ নেই, নেই মাল সংগ্রহ করে রাখার দায়।

অনেক সহজেই অনলাইনে বিজনেস করে ভালো টাকা লাভ করা সম্ভব এই বিজনেস থেকে। ২০২৪ সালে স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া গুলোর মধ্যে এই ব্যবসাটি আপনার সাফল্যের চাবিকাঠী হতে পারে।

স্মার্টফোনের অ্যাপ তৈরি

বর্তমান যুগে স্মার্ট ফোন ছাড়া কেউ চলতে পারে না। স্মার্টফোনের বিভিন্ন কাজ চালানোর জন্য বিভিন্ন অ্যাপস এর প্রয়োজন হয়। স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া গুলোর মধ্যে স্মার্টফোনের অ্যাপ তৈরি সেরা একটি বিজনেস। আপনি যদি কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং এ পড়াশোনা করে থাকেন সেক্ষেত্রে তো কোন কথায় নেই।

তাছাড়াও আপনি চাইলে বিভিন্ন আইটি প্রতিষ্ঠান থেকে এই বিষয়ে প্রশিক্ষণ নিতে পারেন। প্রশ্ন নেওয়ার পরেই শুরু করে দিন অ্যাপ নির্মাণের কাজ। আপনার তৈরি অ্যাপসটি মানুষের যত সমস্যার সমাধান করতে পারবে তত এর চাহিদা বাড়বে। ফলে দিনে দিনে এই অ্যাপসটি ডাউনলোড ও বেশি হবে। যত ডাউনলোড হবে আপনার ইনকামও তত বেশি হবে।

মেম্বারশিপ সাইট

মেম্বারশিপ সাইট হলো এমন সাইট যেখানে সদস্যপদ নিলে বা অর্থের বিনিময় সাবস্ক্রাইব করলে তবেই সে ওয়েবসাইটের বিষয়বস্তু পড়া যায় বা দেখা যায়। এর মধ্যে ই-বুক, ওয়েবিনার, অনলাইন কোর্স বা পডকাস্ট যেকোন কিছুই থাকতে পারেন।

নতুন পাঠক বা দর্শককে আকৃষ্ট করতে সাইটে কিছু বিষয়ে বিনামূল্যে রাখুন, তার থেকে পাঠক আপনার সাইট সম্পর্কে উৎসাহিত হবে ও টাকা দিয়ে সাবস্ক্রাইব করতে আগ্রহী হবে। Low Investment Online Business Ideas 2024 এর মধ্যে মেম্বারশিপ সাইট অন্যতম একটি ব্যবসা।

পডকাস্ট

বর্তমান শতাব্দীর অন্যতম জনপ্রিয় মাধ্যম হল পডকাস্ট। পডকাস্ট হলো একটি অডিও শো বা সিরিজ যা অনলাইনে সম্প্রচারিত হয়। শ্রোতা সেই সিরিজ ডাউনলোড করে নিজের সুবিধামতো সময়েে শুনতে পারেন। বিবিধ বিষয়ে পডকাস্ট করা যেতে পারে। পরিসংখ্যান বলছে, একজন শ্রোতা এক সপ্তাহে গড়ে পাঁচটি বিভিন্ন বিষয়ের উপর পডকাস্ট শোনেন।

এর থেকেই বোঝা যাচ্ছে আজকের পৃথিবীতে পডকাস্টের জনপ্রিয়তা ঠিক কতটা। তাই স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া গুলোর মধ্যে পডকাস্টকে বেছে নিতে পারেন। বিভিন্ন ধরনের পডকাস্ট দেখে ফরম্যাট সম্পর্কে ধারণা তৈরি করুন।

অন্য কোন পডকাস্টকে নকল করবেন না, নিজস্বতা বজায় রাখুন কিন্তু পাশাপাশি পডকাস্টের একটি মূল ধাঁচে বানিয়ে নেয়া ভালো, সেক্ষেত্রে দর্শক বুঝতে পারবেন আপনার পডকাস্ট থেকে তারা কি পেতে পারেন।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস করে আয়ের আরও একটি সহজ ও লাভজনক উপায় হলো অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং। অ্যামাজনের মতো অনলাইন স্টোরের অ্যাফিলিয়েট হয়ে বিক্রির ওপর কমিশন নিয়ে ভালো টাকা রোজগার করা যেতে পারে।

ভিগলিঙ্ক, সিজে বা শেয়ারসেলস-এর মতো অ্যাফিলিয়েট নেটওয়ার্কগুলোও দেখতে পারেন। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বর্তমানে স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া গুলোর মধ্যে জনপ্রিয় একটি বিজনেস।

হোম বেকারি

বর্তমানে স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া গুলোর মধ্যে হোম বেকারির বিজনেসটি খুবই চলছে। আপনি যদি রান্নার দিক দিয়ে একটু অভিজ্ঞ হয়ে থাকেন তাহলে এই বিজনেসটি শুধুই আপনার জন্য। আপনি যে রান্নাতে পারদর্শী সেটি দিয়েই শুরু করতে পারেন।

আপনি বিভিন্ন রান্না তৈরি করে সেটি আপনার ফেসবুক পেজে এবং গ্রুপে প্রচার করবেন। প্রথমত তেমন অর্ডার না পেলেও যখন প্রচার ভালো হবে এবং আপনার রানার কোয়ালিটি ভালো হবে তখন আপনি অর্ডার নিয়ে শেষ করতে পারবেন না। এই বিজনেস এর পরিসর বাড়াতে চাইলে সর্বপ্রথম আপনার রান্নাটির কোয়ালিটি ভালো হতে হবে।  

ইউটিউব চ্যানেল 

রান্নার রেসিপি বা বেড়াতে যাওয়া অথবা বাচ্চাদের খেলা বিভিন্ন বিষয়ের ওপর ইউটিউব চ্যানেল খুলে অনলাইন বিজনেস করে বিজ্ঞাপন থেকে প্রচুর টাকা আয় করছেন বিভিন্ন ইউটিউবার। এই ব্যবসার একমাত্র চ্যালেঞ্জ হলো দর্শক তৈরি করা। একটা নির্দিষ্ট সংখ্যক দর্শক তৈরি করতে না পারলে ইউটিউব থেকে টাকা পাওয়া যায় না।

ফলে আপনার ভিডিও হতে হবে আকর্ষণীয় ও অভিনব। একই রান্নার রেসিপি শুধুমাত্র উপস্থাপনার গুণে অনেক বেশি দর্শককে আকৃষ্ট করতে পারে। ফলে উপস্থাপনা ও ভিডিওর গুণমানের ওপর বিশেষ জোর দিন। Low Investment Online Business Ideas 2024 এর মধ্যে ইউটিউব চ্যানেল জনপ্রিয় একটি বিজনেস।

ব্লগিং

একটি প্রচলিত লাভজনক অথচ স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া হলো ব্লগ লেখা। বিভিন্ন বিষয়ের উপর ব্লগ লিখে দেশে-বিদেশে অনেক টাকা আয় করছেন বিভিন্ন ব্লগার। মানুষ প্রতিনিয়ত ইন্টারনেটে বিভিন্ন জিনিস সার্চ করছেন, পড়ছেন এবং দেখছেন।

ফলে ব্লগ লেখার জন্য বিষয়ের অভাব নেই। কিন্তু বিষয়টিকে কিভাবে উপস্থাপন করছেন সেটিই এখানে গুরুত্বপূর্ণ।

ভার্চুয়াল সহকারি

বিভিন্ন ছোট কোম্পানি তাদের দৈনন্দিন কাজের জন্য নির্ভর করে ভার্চুয়াল সহকারীর ওপর, অর্থাৎ আপনি ঘরে বসে ইন্টারনেটের মাধ্যমে সেই কাজগুলো করে দেবেন যা প্রথাগত ভাবে অফিস ম্যানেজার বা সেক্রেটারি করে থাকেন।

এর মধ্যে মেইল করা, গ্রাহকের প্রশ্নের উত্তর দেয়া, বিল পেমেন্ট, কোম্পানির কর্মীদের অফিস ট্যুরের টিকেট কাটা সবকিছুই থাকতে পারে। স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া গুলোর মধ্যে ভার্চুয়াল সহকারি বিজনেসটিকে শূন্য ইনভেস্টমেন্টের ব্যবসা বলা যেতে পারে।

ওয়েবসাইট থিম তৈরি

ওয়েবসাইটের থিম তৈরি করে অনলাইনে বিক্রি করে আয় করা যেতে পারে। নিজের কাজ জানা থাকলে সব থেকে ভালো, না হলে ডেভেলপারদের দিয়ে কাজ করানো যেতে পারে। সেক্ষেত্রে আপনি ডিজাইনের আইডিয়া দেবেন ও ডেভেলপাররা তা বানাবে।

ভয়েস ওভার আর্টিস্ট

স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া গুলোর মধ্যে ভয়েস ওভার আর্টিস্ট একটি দারুন উপায়। আপনার কণ্ঠস্বর ও বাচনভঙ্গি যদি ভালো হয়, উচ্চারণ হয় স্পষ্ট তাহলে এই অনলাইন বিজনেস এর কথা ভাবতে পারেন। নানা রকমের কাজ পাওয়া যেতে পারে।

দেশের বিভিন্ন রেডিও ও টিভি চ্যানেলে ভয়েস ওভার আর্টিস্ট হিসেবে নাম নথিভুক্ত করে পার্টটাইম কাজ পাওয়া যেতে পারে।

অনলাইন ফটো বিক্রি

আপনি যদি একজন ফটোগ্রাফার হন তাহলে অনলাইনে ফটো বিক্রি করে বিজনেস শুরু করতে পারেন। বিভিন্ন কাজে স্টক ফটোর প্রয়োজন পড়ে আর তার জন্য ক্রেতা অনলাইন মার্কেটপ্লেস থেকে প্রয়োজন ও পছন্দমতো ছবি কিনে নেন। আইস্টক, ফটোড্যুন, শাটারস্টক ইত্যাদি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে সরাসরি ফটো বিক্রি করা সম্ভব।

পোশাকের ব্যবসা

অনলাইনে পোশাকের ব্যবসা করার জন্য আপনার একটি ই-কমার্স ওয়েবসাইট প্রয়োজন। আপনি পাইকারি পোশাক কিনে অথবা কিছু শ্রমিক লাগিয়ে ভালো মানের পোশাক তৈরি করে আপনার ওয়েবসাইটে দিতে পারেন। বর্তমানে অনলাইনে কেনাকাটার চাহিদা প্রচুর রয়েছে তাই সঠিকভাবে করতে পারলে আপনি এটিতে সফল হতে পারবেন।

আপনার যদি ই-কমার্স ওয়েবসাইট না থেকে থাকে সেক্ষেত্রে আপনার ফেসবুক, ইন্সট্রাগ্রাম এবং বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমেও শুরু করতে পারেন। বর্তমানে স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া গুলোর মধ্যে পোশাকের বিজনেসের প্রচুর চাহিদা রয়েছে।

অনুবাদ

আপনার যদি অন্তত দুটি ভাষা ভালোভাবে জানা থাকে তাহলে অনলাইনে অনুবাদ একটি ভালো বিজনেস হতে পারে। বড় শহরের পাশাপাশি ক্রমশই ছোট শহর, মফস্বল ও গ্রামের দিকে ইন্টারনেটের জনপ্রিয়তার ফলে বাড়ছে আঞ্চলিক ভাষার চাহিদা।

বিভিন্ন অ্যাপ বা ওয়েবসাইটে আঞ্চলিক ভাষার মাধ্যমে পৌঁছে যেতে চাইছে নতুন গ্রাহকদের কাছে, আর এর ফলে তৈরি হচ্ছে অনুবাদের কাজের সুযোগ।

কনটেন্ট রাইটিং

আপনার যদি ভাষার উপর দখল থাকে, যদি সহজ ও প্রাঞ্জল ভাষায় গুছিয়ে লিখতে পারেন তাহলে এ অনলাইন বিজনেসটি আপনার জন্য। ইংরেজি ভাষা জানা থাকলে কাজের সুযোগ অনেকটাই বাড়ে। কারণ ঘরে বসেই কাজ করা যায় দেশে-বিদেশের গ্রাহকদের সঙ্গে। স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া গুলোর মধ্যে কনটেন্ট রাইটিং একটি অন্যতম ব্যবসা।

ডাটা এন্ট্রি 

বিভিন্ন কোম্পানিই ডাটা এন্ট্রির জন্য বাইরের কর্মীর উপর নির্ভর করে। একেকটি সংস্থার প্রচুর ডাটা এন্ট্রির কাজ থাকে। এই কাজে খুঁটিয়ে দেখার চোখ ও নিখুঁত হওয়া অত্যন্ত জরুরী। একটি ছোট ভুল থেকে পুরো ডাটাই ভুল হয় যেতে পারে। অনলাইন ডাটা এন্ট্রি স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া গুলোর মধ্যে শূন্য ইনভেস্টমেন্টের একটি ব্যবসা।

ডাটা অ্যানালিস্ট

ডাটা অ্যানালিসিসের কাজ জানা থাকলে ঘরে বসেই ভালো টাকা আয় করা সম্ভব। এই অনলাইন বিজনেসে আপনার দক্ষতাই শেষ কথা। দক্ষতার সঙ্গে কাজ করতে পারলে দেশ-বিদেশের গ্রাহকের সঙ্গে কাজ করা সম্ভব।

অনলাইন ট্রান্সক্রিপশনিস্ট

ট্রান্সক্রিপশনের কাজের জন্য আলাদা কোন দক্ষতার প্রয়োজন হয় না। শোনার জন্য কান ও টাইপিং স্পিড এই দুটোই এক্ষেত্রে প্রধান। এছাড়া যে ভাষায় ট্রান্সক্রিপশন করছেন সে ভাষার ব্যাকরণ জানা থাকা দরকার। বিভিন্ন দেশের বাচনভঙ্গির সঙ্গে পরিচিত থাকলে কাজের সুযোগ বাড়বে।

অনলাইন কনসালটেন্সি

আপনার যদি কোন এটি নির্দিষ্ট বিষয়ে যথেষ্ট জ্ঞান থাকে যা অন্যের কাজে লাগতে পারে তাহলে এই অনলাইন বিজনেস এর কথা ভাবতে পারেন। ক্যারিয়ার, বিয়ে অথবা বেড়াতে যাওয়া যেকোনো বিষয়েই কনসালটেন্সি করতে পারেন যতক্ষণ আপনার পরামর্শে মানুষের সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য হচ্ছে।

ভার্চুয়াল টেক সাপোর্ট 

তথ্য প্রযুক্তির কাজ জানলে ঘরে বসে অনলাইনে ভিডিও কলের মাধ্যমে ক্রেতার সমস্যার সমাধান করে ভালো টাকা আয় করা সম্ভব। অনেক কোম্পানিই নিজেদের ইন-হাউজ আইটি টিম রাখার বদলে সমস্যার সমাধানে ভার্চুয়াল টেক সাপোর্টের উপর নির্ভর করে।

কাস্টমাইজড পণ্য

অনলাইন থেকে কাস্টমাইজড নানা পণ্যের চাহিদা উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে মগ প্রিন্ট, টি শার্ট প্রিন্ট ইত্যাদি কাস্টমাইজড এর বিজনেস দারুন জমে উঠেছে। এই বিজনেস শুরু করতে চাইলে দ্রুত একটি প্রিন্টার কিনে শুরু করে দিন। 

অনলাইন লাইব্রেরী 

এই ব্যবসার জন্য প্রাথমিক কিছু খরচ রয়েছে। কারণ বেশ কিছু বই সংগ্রহ করে তবেই একটি লাইব্রেরি খুলতে পারেন। সাবস্ক্রিপশন বা সদস্য পদের জন্য এটি মূল্য ধার্য করতে পারেন পাশাপাশি বই ধার নেয়ার জন্য টাকা জমা রাখুন। স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া গুলোর মধ্যে অনলাইন লাইব্রেরী এর বিজনেস অন্যতম একটি ব্যবসা।

অনলাইনে মিউজিক বিক্রি 

মিউজিক তৈরি করে রেকর্ড করে অনলাইনে বিক্রি করে টাকা আয় করা সম্ভব। বিভিন্ন কাজে এই স্টক মিউজিক ব্যবহৃত হয়। অডিওজাঙ্গল, ব্যান্ডক্যাপ ইত্যাদি জায়গায় মিউজিক বিক্রি করা সম্ভব। ইন্টারনেটের জনপ্রিয়তা ও নাগাল বাড়ার সাথে সাথেই নতুন নতুন অনলাইন বিজনেসের দিক খুলে যাচ্ছে।

ঘরে বসেই বিজনেস করা যাচ্ছে দেশ-বিদেশের ক্রেতার সঙ্গে। নিজের দক্ষতা ও জ্ঞানকে পুঁজি করে আপনিও শুরু করে ফেলতে পারেন আপনার অনলাইন বিজনেস।

পরিশেষে

স্বল্প বিনিয়োগে অনলাইন বিজনেস আইডিয়া গুলো ইতিমধ্যেই আপনারা জেনে ফেলেছেন। দেরি না করে এই আইডিয়া গুলোর মধ্যে যেকোন একটি নিয়ে কাজে লেগে পড়ুন। প্রথমেই সাফল্যের কথা না ভেবে ধৈর্য্য ধরে পরিশ্রম করুন এবং লেগে থাকুন। এই আর্টিকেল সম্পর্কে যদি আপনার কোন মন্তব্য থাকে নিচে কমেন্ট বক্সে লিখবেন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

জানবো আমরা ওয়েবসাইটের নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url