নিওমাইসিন মলম এর কাজ ও নিওমাইসিন এন্ড ব্যাসিট্রাসিন অয়েন্টমেন্ট এর কাজ কি জানুন

নিওমাইসিন মলম এর কাজ ও নিওমাইসিন এন্ড ব্যাসিট্রাসিন অয়েন্টমেন্ট এর কাজ কি সেটা নিয়েই আজকের আর্টিকেল। নিওমাইসিন এন্ড ব্যাসিট্রাসিন অয়েন্টমেন্ট এর কাজ কি ও নিওমাইসিন মলম এর কাজ জানার জন্য সম্পূর্ন আর্টিকেল আপনাকে পড়তে হবে। তাহলে চলুন নিওমাইসিন মলম এর কাজ এবং নিওমাইসিন এন্ড ব্যাসিট্রাসিন অয়েন্টমেন্ট এর কাজ কি জানা যাক।
নিওমাইসিন মলম এর কাজ ও নিওমাইসিন এন্ড ব্যাসিট্রাসিন অয়েন্টমেন্ট এর কাজ কি জানুন। জানবো আমরা। janbo amra
নিওমাইসিন মলম এর কাজ ও নিওমাইসিন এন্ড ব্যাসিট্রাসিন অয়েন্টমেন্ট এর কাজ কি জানুন
নিওমাইসিন মলম এর কাজ এবং নিওমাইসিন এন্ড ব্যাসিট্রাসিন অয়েন্টমেন্ট এর কাজ কি শুধু আজকের আর্টিকেলে জানবেন তা কিন্তু না। পাশাপাশি নিওমাইসিন ভেট এর কাজ, নিওমাইসিন সালফেট এর কাজ, নিওমাইসিন মলম এর দামও জানবেন। 

সূচিপত্রঃ নিওমাইসিন মলম এর কাজ ও নিওমাইসিন এন্ড ব্যাসিট্রাসিন অয়েন্টমেন্ট এর কাজ কি

ভূমিকাঃ

আমি আপনাদের সব সময়ই বলে থাকি যে যেকোন ঔষধ খাওয়া বা ব্যবহারের আগে অবশ্যই সেটা সম্পর্কে ভালোভাবে জানবেন।

আজকের আর্টিকেলে নিওমাইসিন কি ত্বকের জন্য ক্ষতিকর, নিওমাইসিন কি মুখে ব্যবহার করা যায়, নিওমাইসিন এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া এই বিষয়গুলোও জানবেন। নিওমাইসিন এন্ড ব্যাসিট্রাসিন অয়েন্টমেন্ট এর কাজ কি জানার আগে নিওমাইসিন মলম এর কাজ জেনে নেওয়া যাক চলুন।

নিওমাইসিন মলম এর কাজ

এই ওষুধটি এন্টিবায়োটিক মলম নামে পরিচিত। যা ত্বকের ছোটখাটো আঘাতের পরে সংক্রমনে ঝুঁকি কমাতে এই মলম ব্যবহার করলে কাজ করে থাকে। এটি অন্ত্র সার্জারির সময় সংক্রমণের ঝুঁকি বন্ধ করতে ব্যবহার করা হয়। যেসব ক্ষেত্রে নিওমাইসিন ব্যভার করা হয় তা হলোঃ
  • ব্রণ
  • এলার্জি
  • ত্বকের এলার্জি
  • বাহিক কানের খালের এটোপিক ডারমাটাইটিস
  • ব্যাকটেরিয়াল ডায়রিয়া
  • পোড়া
  • ডার্মাটাইটিস
  • একজিমেটাস
  • কানের সংক্রমণ ব্যাকটেরিয়া
  • গরম জলে পোড়া
  • শিশুর একজিমা
  • সংক্রমণিত ক্ষত
  • সংক্রমণি তো ত্বকের আলসার
  • সংবেদনশীল ব্যাকটেরিয়া দ্বারা সৃষ্ট বাইরের কানের সংক্রমণ
  • সংক্রমণের কারণে চুলকানি
  • নখের সংক্রমণ
  • ত্বক পুড়ে যায়
  • জ্বালা করে
  • ব্যাকটেরিয়ার কারণে চামড়ার জ্বালা
  • চোখের ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণ
  • সংবেদনশীল ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণ ইত্যাদি
এই রোগগুলোর চিকিৎসায় নিওমাইসিন মলম কাজ করে থাকে। নিওমাইসিন মলম এর কাজ সম্পর্কে জানলেন এইবার জানবেন নিওমাইসিন এন্ড ব্যাসিট্রাসিন অয়েন্টমেন্ট এর কাজ সম্পর্কে।

নিওমাইসিন এন্ড ব্যাসিট্রাসিন অয়েন্টমেন্ট এর কাজ

যাদের ঘা ভালো হচ্ছে না যেমন সিজার হইছে সে ঘা, কেটে গেছে সে ঘা, পড়ে গেছে সে ধরনের ঘা, কিংবা শরীরের যত ধরনের ঘা রয়েছে যাদের এ ধরনের ঘা ভালো হচ্ছে না দিনের পর দিন বিভিন্ন ধরনের এন্টিবায়োটিক ওষুধ খাচ্ছেন ব্যথার ওষুধ খাচ্ছেন তাও ভাল হচ্ছেনা তাদের জন্য নিওমাইসিন এন্ড ব্যাসিট্রাসিন অয়েন্টমেন্ট ব্যবহার করলে কাজ করে থাকে।

এ অয়েন্টমেন্ট ওষুধটা জীবাণুর বিরুদ্ধে কাজ করে থাকে। যেসব জীবাণু রোগ সৃষ্টি করে বা ক্ষত সৃষ্টি করে এগুলোর বিরুদ্ধে এই ওষুধ কাজ করে থাকে। এই ওষুধটি ট্রিপল অ্যান্টিবায়োটিক মলম নামে পরিচিত।

এই ওষুধটি অ্যান্টিবায়োটি ওষুধ যা ত্বকের ছোটখাটো আঘাতের পরে সংক্রমণের ঝুঁকি কমাতে ভালো করতে কাজ করে থাকে। এই ওষুধটি সাময়িক ব্যবহারের জন্য। নিওমাইসিন এন্ড ব্যাসিট্রাসিন অয়েন্টমেন্ট এর কাজ সম্পর্কে জেনেছেন এইবার নিওমাইসিন ভেট এর কাজ কি জানুন।

নিওমাইসিন ভেট এর কাজ

গ্রাম পজিটিভ এবং গ্রাম নেগেটিভ ব্যাকটেরিয়ার বিরুদ্ধে অত্যন্ত কার্যকরী একটি ঔষধ হিসেবে কাজ করে থাকে নিওমাইসিন ভেট।

এই ওষুধটি যেকোনো সালমনেলা, ই কলাই, ক্যালিব্যাসিলোসিস নামক ব্যাকটেরিয়ার কারণে হাঁস-মুরগি ও গবাদি প্রাণীর ডায়রিয়া বা পাতলা পায়খানা হয় সেটির চিকিতসায় বা প্রতিরোধে অত্যন্ত কার্যকরী কাজ করে থাকে। নিওমাইসিন ভেট এর কাজ জেনে ফেললেন এখন জানবেন নিওমাইসিন সালফেট এর কাজ কি।

নিওমাইসিন সালফেট এর কাজ

এই অয়েন্টমেন্ট ক্ষত পড়া, বা ত্বকের গ্রাফটিং এর সংক্রমণ ভালো করতে কাজ করে থাকে। ত্বকের বিভিন্ন রোগ যেমন পায়োডামা, সাইকোসিস বার্বি, ইমপোটিগো, ব্রণ এর বিরুদ্ধে অত্যন্ত কার্যকরী।এছাড়া স্ক্যাবিস, পেডিকিউলেসিস,টিনাপেডিস ও এলার্জিক ডারমাটাইটিসের এই রোগগুলোর বিরুধে কাজ করে থাকে।

নিওমাইসিন সালফেট কাজ করে থাকে। এই ওষুধ সকল ব্যাকটেরিয়ার বিরুদ্ধে কাজ করে ভূমিকা পালন করে থাকে। জীবাণু ঘটিত সংক্রমনের চিকিৎসায় নিওমাইসিন সালফেট কাজ করে। নিওমাইসিন সালফেট এর কাজ কি তা জানলেন এবার নিওমাইসিন মলম এর দাম কত জেনে নেওয়া যাক।

নিওমাইসিন মলম এর দাম

নিওমাইসিন মলমের দাম হলঃ10gm tube 30.20 tk । প্রতি গ্রাম অয়েন্টমেন্টে আছে নিওমাইসিন সালফেট বিপি ৩.৫ মিলিগ্রাম । এই ওষুধটি একটি আদর্শ ব্যাকটেরিয়া ধ্বংসকারী মলম। এই মলম ব্যবহারের ফলে ত্বকে আক্রমণকারী সকল ব্যাকটেরিয়ার বিরুদ্ধে কাজ করে থাকে।

এই মলম ব্যবহারের ফলে ত্বক ঝিল্লি পর্দা থেকে শোষণ খুব নগণ্য। এই মলম ব্যবহারের ফলে ত্বকের জীবাণুগুলো নষ্ট করে ত্বকের ক্ষতগুলো ভালো করতে সাহায্য করে।

তাই বলা যায় যখনই ত্বকে ক্ষত শুরু হতে লাগে বা দেখা দেয় তখনই এ মলম ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে ব্যবহার করা উচিত। নিওমাইসিন মলম এর দাম কত তা জেনেছেন এইবার তাহলে নিওমাইসিন কি ত্বকের জন্য ক্ষতিকর এই বিষয়টা জানা যাক।

নিওমাইসিন কি ত্বকের জন্য ক্ষতিকর

যখন ত্বকের কোন ক্ষত ভালো করার জন্য ডাক্তার আপনাকে নিওমাইসিন ব্যবহার করার জন্য দেয় তখন আপনি ব্যবহারের ফলে আপনার ক্ষতগুলো ভালো হতে থাকে। আর আপনি যদি এই ক্ষত ভালো হওয়ার পরেও অনেকদিন ধরে এটি ত্বকের উপর ব্যবহার করেই যান তাহলে এর ক্ষতিকর প্রভাব দেখা দেবে।

তাই বলা যায় খুব বেশি দিন ধরে নিওমাইসিন ওয়েন্টমেন্ট ব্যবহারের ফলে এর প্রতি সংবেদনশীল জীবাণু সংক্রমণতা দেখা দিতে পারে। নিওমাইসিন অটোমেটিক ত্বকের ক্ষতি করতে পারে।

এজন্য বেশি দিন ধরে এই ওষুধ ব্যবহার করা উচিত নয় নিয়ম অনুসারে আপনি এ ওষুধ ব্যবহার করবেন। নিওমাইসিন কি ত্বকের জন্য ক্ষতিকর এটি জানলেন নিওমাইসিন কি মুখে ব্যবহার করা যায় এটি জানা যাক তাহলে।

নিওমাইসিন কি মুখে ব্যবহার করা যায়

নিওমাইসিন মৌখিক বা খাদ্য ছাড়া মৌখিকভাবে গ্রহণ করা হয়। আপনার ডাক্তারের পরামর্শ না দেওয়া পর্যন্ত দুই সপ্তাহের বেশি সময় ধরে এই ওষুধ ব্যবহার করবেন না তাহলে এর জীবানু আপনার ক্ষতি করবে। অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়া হ্রাশের জন্য এই ওষুধ ব্যবহার করা হয়।

সংক্রমণ বন্ধ করার জন্য চিকিৎসা হিসেবে এই ওষুধের ব্যবহার চালিয়ে যান। এমনকি যদি আপনি কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দূরে রাখতে এটি সর্বনিম্ন সম্ভব ডোজ এবং সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য আপনি অল্প করে নিয়ে ব্যবহার করতে পারেন।

এই ওষুধটি ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ব্যবহার করেবেন। নিওমাইসিন কি মুখে ব্যবহার করা যায় তা জানলেন এইবার জেনে নিন নিওমাইসিন এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কি কি রয়েছে।

নিওমাইসিন এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

নিউমাইসিন মুখে খাওয়ার ক্ষেত্রে কখনো কখনো পেটে গ্যাস, ডায়রিয়া এইরকম সমস্যা দেখা দিতে পারে।

নিউমাইসিন এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসেবে এলার্জির জায়গাতে কখনো কখনো চুলকানি জ্বালাভাব দেখা যায়। ব্রণ, ভাইরাস,ছত্রাক ইত্যাদি সংক্রমণের ক্ষেত্রে নিউমাইসিন ব্যবহার করলে পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। এটি ব্যবহারের আগে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া জরুরি।

পরিশেষেঃ নিওমাইসিন মলম এর কাজ ও নিওমাইসিন এন্ড ব্যাসিট্রাসিন অয়েন্টমেন্ট এর কাজ কি

আশাকরি নিওমাইসিন সম্পর্কে ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন আপনারা। এইরকম তথ্য পেতে নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

জানবো আমরা ওয়েবসাইটের নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url